বাংলা

শ্রীসান্থকে চড় মারার ভুল শোধরাতে চান হরভজন

সেই বিতর্কিত ঘটনার পরে হরভজনকে বাকি আইপিএল মরসুমের জন্য নির্বাসিত করা হয়

Harbhajan Singh
Harbhajan Singh. (Photo by NARINDER NANU/AFP via Getty Images)

প্রাক্তন ভারতীয় স্পিনার হরভজন সিং তাঁর খেলার দিনের অন্যতম বিতর্কিত বিষয় নিয়ে সম্প্রতি মুখ খুলেছেন। অভিজ্ঞ স্পিনার এখন স্বীকার করেছেন যে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) উদ্বোধনী মরসুমে তাঁর প্রাক্তন ভারতীয় সতীর্থ এস শ্রীসান্থকে চড় মেরে তিনি একটি ভয়ানক ভুল করেছিলেন।

আইপিএল ২০০৮-এ মোহালিতে একটি গ্রুপ পর্বের ম্যাচে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স (এমআই)-এর হয়ে খেলার সময় হরভজন কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব (বর্তমানে পাঞ্জাব কিংস) পেসার এস শ্রীসান্থকে চড় মেরেছিলেন। বিতর্কিত ঘটনাটি নিয়ে অনেক তোলপাড় হয় এবং সম্প্রচারকারী চ্যানেলে দেখা যায় ম্যাচ পরবর্তী উপস্থাপনা অনুষ্ঠানের আগে শ্রীসান্থ কাঁদছেন।

আমার কারণে আমার সতীর্থদের বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয়েছে: হরভজন সিং

“যা হয়েছে তা ভুল। আমি একটি ভুল করেছিলাম। আমার কারণে আমার সতীর্থদের বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয়েছে। আমি বিব্রত ছিলাম। আমাকে যদি একটি ভুল শুধরাতে হয়, তা হল মাঠে আমি শ্রীসান্থের সঙ্গে যে আচরণ করেছিলাম। এটা হওয়া উচিত হয়নি। যখন আমি এটি সম্পর্কে চিন্তা করি, তখন আমি অনুভব করি যে এর কোন প্রয়োজন ছিল না,” হরভজন গ্ল্যান্স লাইভ ফেস্টে বলেছেন।

যদিও প্রাক্তন ভারতীয় স্পিডস্টার শ্রীসান্থ ঘটনাটিকে পরে আর তেমন আমল দেননি এবং হরভজন সিংকে তাঁর বড় ভাই বলে ডাকেন। প্রাক্তন ভারতীয় স্পিনারকে সেই বছর তাঁর আইপিএলের বেতন সংগ্রহের অনুমতি দেওয়া হয়নি এবং বাকি মরসুমের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছিল তাঁকে। বোর্ড অফ কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই) একটি বিশেষ তদন্ত পরিচালনা করে এবং হরভজনকে দোষী সাব্যস্ত করার পরে পাঁচটি ওডিআইয়ের জন্য নিষিদ্ধ করেছিল।

সেই মরসুমে এমআই পঞ্চম স্থানে শেষ করে এবং আইপিএল ২০০৮-এর সেমি-ফাইনালে অল্পের জন্য যোগ্যতা অর্জন করতে ব্যর্থ হয়। মুম্বই মোট ১৪টি ম্যাচ খেলে মাত্র সাতটি জিততে সক্ষম হয়। ফলে প্রতিযোগিতা থেকে ছিটকে যায় তারা।

অন্যদিকে, কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব সেই মরসুমে লিগ পর্যায়ের পর পয়েন্ট তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে ছিল। মোহালি-ভিত্তিক ফ্র্যাঞ্চাইজি তাদের ১৪ ম্যাচের মধ্যে ১০টি জিতেছিল এবং পয়েন্টের নিরিখে রাজস্থান রয়্যালস (আরআর)-এর পিছনেই তাদের অবস্থান ছিল। স্বাভাবিকভাবেই সেমি-ফাইনালের জন্য যোগ্যতা অর্জন করলেও প্লে অফের জন্য যোগ্যতা অর্জন করে, তবে সেমি-ফাইনালে সেই মরসুমের রানার্স-আপ চেন্নাই সুপার কিংসের বিরুদ্ধে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে যায়।