বাংলা

“আমি ইতিমধ্যেই অনেক ব্যাখ্যা করেছি”, অধিনায়কত্ব ছাড়া প্রসঙ্গে বললেন বিরাট কোহলি

বললেন এই বিষয়ে আর বিতর্ক চান না

Virat Kohli
Virat Kohli. (Photo by Matthew Lewis-ICC/ICC via Getty Images)

টি-২০ বিশ্বকাপ শুরুর আগে বিরাট কোহলি ঘোষণা করেছিলেন যে তিনি এই মেগা ইভেন্টের পরেই টিম ইন্ডিয়ার টি-টোয়েন্টি অধিনায়কের পদ থেকে সরে দাঁড়াবেন। এই সিদ্ধান্তটি অনেকের কাছেই একটি ধাক্কা ছিল কারণ ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ ও সমর্থকরা এমন সিদ্ধান্ত প্রত্যাশা করেননি। একবার সিদ্ধান্ত নিয়ে নেওয়ার পর তাঁর সিদ্ধান্ত নিয়ে অবশ্য ভারতীয় অধিনায়ক সমালোচকদের কথায় কর্ণপাত করেননি।  

কোহলি বলেছেন কেন এমন সিদ্ধান্ত, কী কারণ রয়েছে এর পিছনে, এই ধরনের যাবতীয় প্রশ্নের জবাব তিনি ইতিমধ্যেই দিয়ে দিয়েছেন, তাই ওই প্রসঙ্গে আর কোন রকম বিতর্কে গিয়ে লাভ নেই। তিনি স্পষ্ট করে দিয়েছেন টিম ইন্ডিয়া এখন পুরোপুরি বিশ্বকাপে ফোকাসড এবং সেই ফোকাস যাতে নড়ে না যায় তাই বাহ্যিক কোন আলোচনায় জড়াতে চান না তিনি। 

“আমি ইতিমধ্যেই অনেক ব্যাখ্যা করেছি এবং আমি মনে করি না যে আমার আর এই নিয়ে কথা বলার দরকার আছে। আমাদের লক্ষ্য এই বিশ্বকাপে ভালো খেলা এবং দল হিসেবে আমাদের যা যা করা দরকার তা করা। কিন্তু কিছু মানুষ এমন আছেন যাঁরা এমন কিছু খুঁড়ে তোলার চেষ্টা করছেন যার কোন অস্তিত্বই নেই। আর আমি মানুষ নই যে কিনা তাঁদের ইন্ধন যোগাবে। আমি নিজেকে খুব সৎভাবে এবং খোলাখুলিভাবে ব্যাখ্যা করেছি এবং যদি মানুষ মনে করে যে আমি ইতিমধ্যে যা বলেছি তার চেয়ে আরও বেশি কিছু আছে, তাহলে তাদের প্রতি করুণা করা ছাড়া আর কিছুই করার নেই,” কোহলি নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে উদ্ধৃতি দিয়ে বলেছেন।

 

সিদ্ধান্তটি বিরাট কোহলির, আমাদের দিক থেকে কোনো চাপ ছিল না: সৌরভ গাঙ্গুলি

কোহলি টিম ইন্ডিয়ার অন্যতম প্রধান সদস্য। তিনি অনেক ম্যাচ দলকে একা হাতে জিতিয়েছেনএবং আধুনিক ক্রিকেটের চেজ মাস্টার হিসাবে বিখ্যাত। দলে তার অবদান অপরিসীম এবং এইভাবে তিনি যখন ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম ফর্ম্যাটের অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা করেন, তখন বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি সহ অনেকেই অবাক হয়েছিলেন।

প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক বলেছেন যে এটি কোহলির ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত এবং তার উপর কোনও চাপ ছিল না। তিনি আরও যোগ করেছেন যে দীর্ঘ সময়ের জন্য সমস্ত ফর্ম্যাটে অধিনায়কত্ব করা একটি কঠিন কাজ।

“আমি বিস্মিত ছিলাম (যে বিরাট কোহলি টি -টোয়েন্টি অধিনায়ক পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন)। ইংল্যান্ড সফরের পরই সম্ভবত এই সিদ্ধান্তটি নিয়েছিল এবং এটি তাঁর সিদ্ধান্ত। আমাদের দিক থেকে কোনো চাপ ছিল না। আমরা তাকে কিছু বলিনি। আমরা এমন কিছু করি না কারণ আমি নিজে একজন খেলোয়াড় ছিলাম তাই আমি বুঝতে পারি। এতদিন ধরে সব ফর্ম্যাটে অধিনায়ক হওয়া খুব কঠিন,” বলেছেন গাঙ্গুলি।