জনি বেয়ারস্টোর স্টাম্পিং বিতর্কে অ্যালেক্স কেরির পাশে দাঁড়ালেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন

Jonny Bairstow
Jonny Bairstow. ( Image Source: Ryan Pierse/Getty Images )

অ্যাশেজ সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টেও নিজেদের জয়ের ধারা বজায় রেখেছে প্যাট কামিন্সের নেতৃত্বাধীন অস্ট্রেলিয়া। বেন স্টোকসের নেতৃত্বাধীন ইংল্যান্ডকে তারা ৪৩ রানে পরাজিত করেছে। এই পাঁচ ম্যাচের টেস্ট সিরিজে পরপর দুটি ম্যাচ জিতে নিয়ে এই মুহূর্তে চালকের আসনে রয়েছে অস্ট্রেলিয়া।

লর্ডস টেস্টের শেষ দিনে হওয়া একটি ঘটনা নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। সেই ঘটনাটি হল ইংল্যান্ডের উইকেটরক্ষক-ব্যাটার জনি বেয়ারস্টোর স্টাম্প আউট। ৫২ তম ওভারের শেষ বলটি ছেড়ে দিয়ে বেয়ারস্টো ক্রিজ থেকে বেড়িয়ে পড়েছিলেন। তিনি ভেবেছিলেন যে বলটি ডেড হয়ে গেছে। কিন্তু আসলে তা হয়নি। বেয়ারস্টোর এই ভুলের সুযোগ নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার উইকেটরক্ষক অ্যালেক্স কেরি তাকে স্টাম্প আউট করে দেন। জনি বেয়ারস্টোকে হতাশ হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয়। তিনি ২২ বলে ১০ রান করেছিলেন।

এই ঘটনার পর সোশ্যাল মিডিয়া দুইভাগে ভাগ হয়ে যায়। অনেকে অ্যালেক্স কেরির প্রশংসা করেছেন আবার অনেকে তার সমালোচনাও করেছেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) কেন জনি বেয়ারস্টোকে আউট দেওয়া হয়েছিল সেই ব্যাপারে একটি ব্যাখ্যা জারি করেছে।

টুইটার ব্যবহারকারীদের মধ্যে একজন জনি বেয়ারস্টোর আউট হওয়ার ভিডিওটি শেয়ার করেছেন এবং বলেছেন যে যারা অ্যালেক্স কেরির প্রশংসা করছেন তারা একবার নন-স্ট্রাইকার এন্ডের ব্যাটারকে রান আউট করার জন্য রবিচন্দ্রন অশ্বিনের সমালোচনা করেছিলেন, এবং এটিকে ‘ডবল স্ট্যান্ডার্ডস’ বলে অভিহিত করেছিলেন।

রবিচন্দ্রন অশ্বিন এটির জবাবে বলেন, “আমাদের অবশ্যই একটি সত্যকে জোরে এবং পরিষ্কারভাবে বলতে হবে। টেস্ট ম্যাচে একজন উইকেটরক্ষক অকারণে এতদূর থেকে স্টাম্পে বল ছুড়বেন না। তিনি বা তার দল নিশ্চয়ই এর আগে ব্যাটারদের বল ছেড়ে ক্রিজ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার এই স্বভাব লক্ষ্য করেছেন, ঠিক যেমনটা বেয়ারস্টো করেছেন। এটিকে অন্যায্যতা বা স্পিরিট অফ দ্য গেমের দিকে নিয়ে যাওয়ার পরিবর্তে আমাদের সেই ব্যক্তির খেলার ক্ষেত্রে যে বুদ্ধি রয়েছে সেটার প্রশংসা করতে হবে।”

দ্বিতীয় টেস্টে খুব বেশি রান করতে পারেননি অ্যালেক্স কেরি

অ্যাশেজ সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচটিতে দুটি ইনিংস মিলিয়ে অ্যালেক্স কেরি মাত্র ৪৩ রান করেন। প্ৰথম এবং দ্বিতীয় ইনিংসে তিনি যথাক্রমে ৪৩ বলে ২২ রান এবং ৭৩ বলে ২১ রান করেন।

৬ই জুলাই, বৃহস্পতিবার থেকে হেডিংলিতে অ্যাশেজ সিরিজের পরবর্তী টেস্ট ম্যাচটি শুরু হবে। এই ম্যাচটিতে ইংল্যান্ডকে পরাজিত করতে পারলে সিরিজটি জিতে যাবে অস্ট্রেলিয়া।