বাংলা

“এখনও আইপিএলকে পিছনে ছেড়ে আসিনি”, চেন্নাইয়ে লিগ্যাসির ছাপ ছেড়ে আসা প্রসঙ্গে ধোনির চটকদার জবাব

ইঙ্গিত দিলেন পরের মরসুমেও খেলা চালিয়ে যাওয়ার

MS Dhoni
MS Dhoni. (Photo Source: IPL/BCCI)

এই নিয়ে আইপিএলের আরও একটি শিরোপা উঠল মহেন্দ্র সিং ধোনির হাতে। চেন্নাই সুপার কিংসকে চতুর্থ শিরোপা জিতিয়েছেন ভারতের ইতিহাসের অন্যতম সেরা অধিনায়ক। চেন্নাই সুপার কিংসের ইতিহাস লেখা হলে সেখানে সবচেয়ে বেশি পৃষ্ঠা যাঁকে নিয়ে লেখা হবে তিনি নিঃসন্দেহে হবেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। ইতিমধ্যেই দলের কিংবদন্তীতে পরিণত হয়েছেন তিনি। গতকালের জয় দিয়ে যে আইপিএল কেরিয়ারের ইতি টানছেন না, চতুর্দশ আইপিএল শেষ করার সাথে সাথেই তা নিশ্চিত করলেন ধোনি। ফলে ধোনির অবিস্মরণীয় যাত্রার গতি যে এখনই রুদ্ধ হচ্ছে না সেই ব্যাপারে তাঁর সমর্থকরা নিশ্চিন্ত হতে পারেন।  

ধোনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন ২০২০ সালে। সর্বশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন ২০১৯ সালে, আইসিসি বিশ্বকাপ ২০১৯-এর সেমিফাইনালে। সেই সময় অনেকেই হয়তো ভেবেছিলেন, ২০২০ আইপিএল খেলেই ব্যাট, গ্লাভস তুলে রাখবেন মাহি। তবে ২০২১ আইপিএলের পরও ধোনি ইঙ্গিত দিয়ে রাখলেন যে তিনি খেলবেন আগামী মরসুমেও।

ম্যাচ পরবর্তী প্রেজেন্টেশনে কথা হচ্ছিল স্বনামধন্য ধারাভাষ্যকার হর্ষ ভোগলে ও বিজয়ী অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির মধ্যে। তখনই কথা ওঠে চেন্নাইয়ের হয়ে ধোনি যে লিগ্যাসি পেছনে রেখে যাচ্ছেন সেই প্রসঙ্গে। ধোনি তৎক্ষণাৎ ভোগলের ভুল শুধরে দিয়ে হাসতে হাসতে বলেন, “আমি এখনও আইপিএলকে পিছনে ছেড়ে আসিনি।” 

আমি থাকছি কি না সেটা গুরুত্বপূর্ণ নয়

তবে ধোনি আগামী আসরে চেন্নাইয়ের হয়ে খেলবেন কি না তা স্পষ্ট করেননি। তিনি দিনকয়েক আগে জানিয়েছিলেন, “রিটেনশন পলিসি কেমন হতে চলেছে তা এখনো আমরা জানি না। জানি না কতজন বিদেশি বা ভারতীয়কে ধরে রাখার অনুমতি থাকবে। প্রত্যেক দলের কাছে কত টাকা থাকবে নিলামের জন্য তাও জানি না। এরকম অনেক অনিশ্চয়তা আছে। যতক্ষণ না সেসব ব্যাপারে ধোঁয়াশা ততদিন কোন সিদ্ধান্তে উপনীত হওয়া যাবে না। তাই এখন অপেক্ষা করে থাকতে হবে, এবং আশা করা যায় যে সিদ্ধান্তই নেওয়া হোক তাতে যেন সবার ভালোই হয়।” তবে তিনি তখন জানাতে ভোলেননি শেষ ম্যাচ খেলতে চান চেন্নাইয়ে। সেই চেন্নাইয়ের উন্নতি নিয়েই আপাতত তার সব ভাবনা। 

ধোনি বলেন, “আমি এটা আগেও বলেছি, সবকিছু নির্ভর করছে বিসিসিআইয়ের ওপর। দুটি নতুন দল আসছে। আমাদের সিদ্ধান্ত নিতে হবে, চেন্নাইয়ের জন্য কী করলে ভালো হবে। আমি থাকছি কি না সেটা গুরুত্বপূর্ণ নয়। এমন একটা শক্তিশালী ভিত্তি গড়ে দিতে হবে যাতে ভবিষ্যতে দলটা না ভোগে। সেই ভিত্তির উপর দাঁড়িয়ে দলটা যেন আগামী ১০ বছর ফ্র্যাঞ্চাইজির সাফল্যে অবদান রাখতে পারে।”