বাংলা

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় মিতালী রাজের

মহিলাদের ক্রিকেটে ওডিআই ফর্ম্যাটের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হিসেবে কেরিয়ার শেষ করলেন মিতালী রাজ

Mithali Raj
Mithali Raj. (Photo by Ashley Allen – ECB/ECB via Getty Images)

কিংবদন্তি ভারতীয় ক্রিকেটার মিতালী রাজ ৮ই জুন, বুধবার, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সব ধরনের ফর্ম্যাট থেকে অবসর নেওয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা দিয়েছেন। টুইটারে তাঁর এই সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেছেন তিনি। ২০২২ মহিলাদের ওয়ানডে বিশ্বকাপ থেকে ভারত সেমি-ফাইনালের আগেই ছিটকে যাওয়ার পরেই মনেই হয়েছিল এই টুর্নামেন্টটেই হয়তো কিংবদন্তী ক্রিকেটার ভারতের হয়ে শেষবারের মতো খেলে ফেললেন। মিতালী রাজের অবসর ভারতীয় তথা বিশ্ব ক্রিকেটের জন্য একটি যুগের অবসান। 

“বছরের পর বছর ধরে আপনাদের সমস্ত ভালোবাসা এবং সমর্থনের জন্য ধন্যবাদ! আমি আপনাদের আশীর্বাদ এবং সমর্থন নিয়ে আমার ২য় ইনিংসের জন্য অপেক্ষা করছি,” মিতালি টুইটের ক্যাপশনে লিখেছেন।

১৯৯৯ সালে তাঁর আন্তর্জাতিক অভিষেক। জাতীয় দলের একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হয়ে উঠতে মিতালী বেশী সময় নেননি। তিনি একের পর এক চমৎকার ইনিংস খেলেছেন এবং বছরের পর বছর ধরে তাঁর দলকে অসংখ্য জয়ের পথ দেখিয়েছেন। ব্যাট হাতে যেমন তিনি ভারতকে দীর্ঘ দিন পরিষেবা দিয়েছেন তেমন নেতৃত্বেও তাঁর অধীনে ভারত একের পর এক স্মরণীয় হয় অর্জন করেছে। উল্লেখ করা বাহুল্য, পেশাদার ক্রিকেটে তাঁর বিদায় পুরো ক্রিকেট বিশ্বকে প্রভাবিত করবে কারণ তিনি প্রকৃত অর্থেই ক্রিকেটের একজন লেজেন্ড।

টুইটারে মিতালী রাজের বার্তা

সিদ্ধান্ত ঘোষণা করার সময় তিনি একটি আবেগপূর্ণ নোটও লিখেছেন। “আমি একটি ছোট মেয়ে হিসাবে ইন্ডিয়া ব্লুজ পরার যাত্রায় রওনা হয়েছিলাম কারণ নিজের দেশের প্রতিনিধিত্ব করা সর্বোচ্চ সম্মান। উঁচু-নীচুই ভরা ছিল যাত্রা। প্রতিটি ঘটনা আমাকে অনন্য কিছু শিখিয়েছে এবং গত ২৩ বছর আমার জীবনের সবচেয়ে পরিপূর্ণ, চ্যালেঞ্জিং এবং আনন্দদায়ক বছর ছিল,” তাঁর পোস্টটে লিখেছেন।

তিনি আরও লেখেন, “সব যাত্রার মত এটাকেও শেষ হতে হত। যতবার আমি মাঠে নেমেছি, ততবার ভারতকে জেতানোর জন্য নিজের সেরা দিয়েছি। আমি মনে করি নিজের কেরিয়ার শেষ করার এটাই ঠিক সময় কারণ দলে ইতিমধ্যে অনেক প্রতিভাবান খেলোয়াড় এসেছেন এবং ভারতীয় ক্রিকেটের ভবিষ্যত উজ্জ্বল।”

একনজরে মিতালীর কেরিয়ারের পরিসংখ্যান

মিতালীর কেরিয়ারের পরিসংখ্যান সম্পর্কে বলতে গেলে, তিনি ১২টি টেস্টে ভারতের প্রতিনিধিত্ব করে ৬৯৯ রান করেছিলেন, যার মধ্যে ১টি সেঞ্চুরি ও ৪টি হাফ সেঞ্চুরি, সর্বোচ্চ ২১৪। টি-২০ ক্রিকেটে ৮৯ ম্যাচে ২৩৬৪ রান করেছেন ১৭টি অর্ধশতকসহ, গড় ৩৭.৫২।

তবে তাঁর সেরা ফর্ম দেখা গিয়েছে ৫০ ওভারের ফর্ম্যাটে। ২৩২ ম্যাচে ৭৮০৫ রান করে তিনি ওডিআই ফর্ম্যাটে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক মহিলা ক্রিকেটার। ৬০.৬৮-এর বিশাল গড় ধরে রাখার পাশাপাশি ৭টি সেঞ্চুরি ও ৬৪টি হাফ সেঞ্চুরি করেছেন।