বাংলা

ইংল্যান্ডের মাটিতে সিরিজ জয় ভারতের অন্যতম সেরা সাফল্য হবে, মনে করেন চেতেশ্বর পূজারা

Cheteshwar Pujara
Cheteshwar Pujara. (Photo by Stu Forster/Getty Images)

আগামী ১ জুলাই ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজ নির্ণায়ক টেস্টে নামছে ভারতীয় দল। মাঝে হয়ত একটা বছর কেটে গিয়েছে ঠিকই, কিন্তু জেতার খিদেটা ভারতীয় ক্রিকেটারদের এখনও সেই একইরকম রয়েছে। ড্র নয় এই ম্যাচ জিতেই সিরিজ জিততে মরিয়া টিম ইন্ডিয়া। ইংল্যান্ডের মাটিতে তাদের হারিয়ে সিরিজ জয় ভারতীয় দলের অন্যতম সেরা অনুভূতি হবে বলেই মনে করেন চেতেশ্বর পূজারা। রাহুল দ্রাবিড়ের তত্ত্বাবধানে সেই প্রস্তুতিতেই এখন ব্যস্ত সকলে।

টানা ব্যর্থতা। সমালোচনার ঝড় কাটিয়ে ফের একবার ভারতীয় দলে প্রত্যাবর্তন করেছেন চেতেশ্বর পূজারা। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে অজিঙ্ক রাহানে ও তাঁর চূড়ান্ত ব্যর্থতার পর সমালোচনার ঝড় বয়ে গিয়েছিল ভারতীয় ক্রিকেট মহলে। দেশে ফেরার পরই ভারতীয় দল থেকে তাদের বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। শ্রীলঙ্কা সিরিজে চেতেশ্বর পুজারাকে বাইরে রেখেই দল ঘোষণা করেছিলেন নির্বাচকরা। যদিও তাদের দলে ফেরার রাস্তা যে একেবারেই বন্ধ নয় সেই কথাও জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল।

সাসেক্সের হয়ে কাউন্টিতে এবার ৫ ম্যাচ খেলে ৭২০ রান করেছেন চেতেশ্বর পূজারা

এরপরই আইপিএল চলারকালীন ইংল্যান্ডে কাউন্টি খেলার উদ্দেশে রওনা দিয়েছিলেন চেতেশ্বর পূজারা। সেখানেই সাসেক্সের হয়ে দুর্ধর্ষ পারফরম্যান্স দেখিয়েছিলেন তিনি। চেতেশ্বর পূজারার ব্যাট থেকে কাউন্টি ক্রিকেটে মাত্র পাঁচ ম্যাচেই এসেছিল ৭২০ রান। যারমধ্যে চারটি শতরান ছিল পূজারার। একইসঙ্গে তাঁর ব্যাট থেকে এসেছিল একটি দ্বিশতরানও।  ইংল্যান্ডের পরিবেশে পূজারার এমন পারফরম্যান্সটাই ফের একবার ভারতীয় দলে তাঁর ফেরার রাস্তাটা খুলে দিয়েছিল।

যদিও ইংল্যান্ডে মাটিতে তাদের বিরুদ্ধে খেলাটা যে তাঁর কাছে আরও বড় একটা চ্যালেঞ্জ তা বলাই বাহুল্য। ভারতীয় দলের সঙ্গে ইংল্যান্ডের মাটিতে পা রাখার পর থেকেই প্রস্তুতিতে ব্যস্ত চেতেশ্বর পূজারা। গতবার যে জায়গা থেকে তারা ছেড়েছিল, একেবারেই সেই জায়গা থেকেই শুরু করার জন্য তারা প্রস্তুত রয়েছেন বলেই জানিয়েছেন পূজারা। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে তাদের ঘরের মাঠে সিরিজ জয়টা অন্যতম সেরা হবে বলেই মনে করছেন পূজারা।

তিনি জানিয়েছেন, “আগের বছর আমরা যা করেছি, এবারই সেটাই করার জন্য যে সকলে প্রস্তুত রয়েছে, সে ব্যপারে আমি নিশ্চিত। এই ম্যাচ জয়ের পাশাপাশি যদি সিরিজও জয় হয়, ভারতের কাছে সেটা অন্যতম সেরা একটা জয় হবে’।

দক্ষিণ আফ্রিকাতেই রাহুল দ্রাবিড়ের তত্ত্বাবধানে খেলেছেন তিনি। এবার ফের একবার দ্রাবিড়ের তত্ত্বাবধানে নামতে চলেছেন। যদিও রাহুল দ্রাবিড়ের সঙ্গে সম্পর্কটা তাঁর বহুদিনের। রাহুল দ্রাবিড় যে তাঁর আদর্শ সেই কথা বলতে দ্বিধা করেননি চেতেশ্বর পূজারা।

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে নামার আগে রাহুল দ্রাবিড়কে নিয়ে স্মৃতি চারণায় চেতেশ্বর পূজারা

এই প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, রাহুল ভাই সবসময়ই আমার কাছে আদর্শ। ২০০৭ সালে যখন তিনি ভারতীয় দলের অধিনায়ক সেই সময়ই প্রথমবার তাঁর সঙ্গে আমার দেখা হয়েছিল। তারপর থেকে সবসময়ই তাঁর সংস্পর্শে থেকেছি। একজন ক্রিকেটার হিসাবে সবসময়ই তাঁর থেকে নানান জিনিস শিখতে পেরেছি আমি। এমনকী তিনি অবসর নেওয়ার পরও যখন ভারতীয়-এ দলের কোচ হয়েছিলেন সেই সময়এও প্রচুর সাহায্য পেয়েছি তাঁর থেকে।

পূজারা আরও জানিয়েছেন, তিনি সবসময়ই হাসিমুখে থাকেন। পরিস্থিতি কখনোই জটিন হতে দেননা।  তাঁর শেখার অনুভূতিটা সবসময়ই অন্যান্য সমস্তকিছুর থেকে আলাদা।

ভারতীয় দলের সঙ্গে গত ১৬ জুনই ইংল্যান্ডে পৌঁছেছেন চেতেশ্বর পূজারা। দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের ব্যর্থতা ভুলে এখন হয়ত সামনের দিকেই এগিয়ে যেতে চলেছেন পুজারা। ইংল্যান্ডের চ্যালেঞ্জ সামলে ফের ঘুরে দাঁড়াতে পারেন কিনা সেটাই এখন দেখার।